Incubator talk:Upload/bn

From Wikimedia Incubator
Jump to navigation Jump to search

কৃষ্ণ কে?

অনেকেই জানতে চান যে “কৃষ্ণ” কে? প্রথম বেদান্ত সূত্র অনুযায়ী এ জাতীয় প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করা মানব জীবনের শুভ লক্ষণ কারণ ৮৪ লক্ষ জীবনের মধ্যে একমাত্র এই মানব জীবনেই আমরা এই প্রশ্নটি করতে পারি। দ্বিতীয় বেদান্ত সূত্র অনুযায়ী যার থেকে সবকিছু সৃষ্টি হয় তিনিই পরম তত্ত্ব। তাই পরম তত্ত্ব অবশ্যই একজন ব্যক্তি। চৈতন্য চরিতামৃতে উল্লেখ করা হয়েছে শ্রীকৃষ্ণই হচ্ছেন ঈশ্বর এবং সমস্ত অবতার তাঁর থেকে উদ্ভূত। আরও বলা হয়েছে শ্রীকৃষ্ণই হচ্ছে পূর্ণ তত্ত্ব এবং পরম সত্য। তিনি সর্বব্যপি ব্রহ্ম, পরমাত্মা ও পরমেশ্বর ভগবান রূপে বিরাজ করেন। শ্বেতাশ্বর উপনিষদে বলা হয়েছে শ্রীকৃষ্ণ হচ্ছেন সমস্ত ঈশ্বরের ঈশ্বর, সমস্ত উপনিষদের গুঢ় তত্ত্ব এবং বেদের সার। গোপাল তাপনী উপনিষদে যা গোপাল বা কৃষ্ণের চিন্ময় রূপকে প্রকাশ করে সেখানে উল্লেখ আছে সমস্ত চেতন জীবের চেতনার উৎস হচ্ছেন শ্রীকৃষ্ণ। ভগব্‌দ গীতাতে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ বলেছেন আমি জড় ও চেতন উভয় জগতের সব কিছুর উৎস। এছাড়া অসংখ্য শাস্ত্রে শ্রীকৃষ্ণের ভগবত্তা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তাই আমরা এই সিদ্ধান্তে উপনিত হই যে “কৃষ্ণস্তু ভগবান স্বয়ং” অর্থাৎ শ্রীকৃষ্ণই হচ্ছেন পরমেশ্বর ভগবান

হরে কৃষ্ণ